মাধ্যমিকের ভয়ে বাড়ি থেকে চম্পট রিষড়ার ২ তরুণী, পুলিশের তৎপরতায় খোঁজ মিলল আজমেঢ় শরিফে | SANGBAD BHAVAN  

মাধ্যমিকের ভয়ে বাড়ি থেকে চম্পট রিষড়ার ২ তরুণী, পুলিশের তৎপরতায় খোঁজ মিলল আজমেঢ় শরিফে

মাধ্যমিকের প্রস্তুতি ভালো না হওয়ার কারণে হুগলী থেকে সুদূর রাজস্থানে পাড়ি দুই পরীক্ষার্থীর! অবশেষে রিষড়া থানার পুলিশ উদ্ধার করলো তাদের। আজমীর শরীফ থেকে উদ্ধার করা হয় ওই দুই তরুণীকে। গত ২৯শে জানুয়ারী রিষড়ার বাসিন্দা ওই দুই তরুণী পড়ার নাম করে বাড়ি থেকে বের হয়।

সহপাঠীদের তারা জানিয়েছিল জেরক্স করতে যাবে তারা। এরপরে একটি খাবারের দোকানে যায়, তবে সেখান থেকে আর পাওয়া যায় না তাদের। মোবাইল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আর যোগাযোগও করতে পারেনি কেউ। এরপর রাত সাড়ে দশটার সময় বাড়িতে ফোন করে জানায় তারা বিপদে পড়েছে।

আরও পড়ুন,
*Indrani Halder: প্রেমদিবসের আগে প্রেমজীবনের অজানা তথ্য তুলে ধরলেন ইন্দ্রাণী হালদার, কী বললেন অভিনেত্রী?
*‘সানা এসো’, বিরিয়ানির প্লেট হাতে ‘দাদাগিরি’র মঞ্চে ব্যারাকপুরের দাদা বউদি বিরিয়ানি খাওয়াতে ডাক! শর্ত চাপালেন সৌরভ

এরপর থেকেই আবার ফোন বন্ধ হয়ে যায়। পরিবারের তরফ থেকে মনে করা হয় অপহরণ করা হয়েছে তাদের। রিষড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করার পর পুলিশের তৎপরতা শুরু হয়। মোবাইলের শেষ লোকেশন পাওয়া গিয়েছিল বর্ধমানে। পরে পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমানের পুলিশ কন্ট্রোল রুমেও বিষয়টি জানানো হয়।

জানা গিয়েছে, চন্দননগরের পুলিশ কমিশনার অমিত পি জগল্ভি বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেন। এরপরেই খোঁজ মেলে রাজস্থানের আজমীর শরীফে। সেখানকার পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে নিরাপদ স্থানে আনা হয় ওই তরুণীদের। বুধবার সকালে রিষড়া থানার পুলিশ তাদের ফিরিয়ে নিয়ে আসে।

এই বিষয়ে কমিশনার জানিয়েছেন তাদের মোবাইল ট্র্যাক করার পর তাদের সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইলও দেখা হয়। সেখান থেকেই আজমীর শরীফের সন্ধান মেলে। জানা গিয়েছে মাধ্যমিকের প্রস্তুতি না হওয়ার কারণেই তারা ভয়ে পালিয়ে গিয়েছিল।

আরও পড়ুন,
*Dev: রাজনীতিকে চিরবিদায়! জল্পনা উস্কে সংসদ থেকে দেবের পোস্ট
*‘নিষ্ঠুর ক্যানসার’ কেড়ে নিয়েছে ‘ডান হাত’, মাত্র দুমাসেই ‘বাঁ হাতে’ লেখা অভ্যাস করে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিচ্ছে নদিয়ার পড়ুয়া

Note: প্রতিবেদনে উল্লেখিত তথ্য বিভিন্ন নিউজ পোর্টাল / অনলাইনে পাওয়া তথ্যের উপর ভিত্তি করে লেখা। খবরের সত্যতা যাচাই করেনা Sangbad Bhavan। ভিডিও খবর পেতে সাবস্ক্রাইব করুন সংবাদ ভবন YouTube পেজ। ফলো করুন Google News, Instragram, Facebook পেজ।